মহিলাদের হাঁটু ব্যাথার কারণ ও প্রতিকার - হাঁটু ব্যথার ব্যায়াম জেনে নিন

 আমরা অনেক সময় অনেক কাজকর্ম করতে গিয়ে হাটুতে ব্যথা পাই এবং অনেক সময় বেশি হারলেও হাঁটুতে ব্যথা হয় অনেক সময় দেখা যায় আমাদের এমন হাটু ব্যাথা হয় যে ব্যথার জন্য এতটাই অস্থির হয়ে যায় কোন কাজ করতে পারিনি তাই আজকে আমরা এই আর্টিকেলে আলোচনা করব হাটু ব্যথার কারণ ও প্রতিকার এবং হাটু ব্যাথার ব্যায়াম সম্পর্কে যা আপনি নিজেই আপনার হাতে ব্যাথা দূর করতে পারবেন ।


আরো জানতে পারবেন হাঁটুতে ব্যাথা হলে ব্যায়ামের মাধ্যমে না কমলে কিভাবে কি কি চিকিৎসা নিতে হবে তা সম্পর্কে । তাই আপনি যদি আমাদের এই আর্টিকেলটি শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত মনোযোগ সহকারে পড়েন তাহলে আজকের এই আর্টিকেলে আমরা যা আলোচনা করব তা থেকে আপনি নিশ্চয়ই উপকৃত হবেন তাহলে চলুন দেরি না করে শুরু করা যাক আজকের আর্টিকেল ।

কনটেন্ট সূচিপত্র ঃমহিলাদের হাঁটু ব্যাথার কারণ ও প্রতিকার - হাঁটু ব্যথার ব্যায়াম জেনে নিন

  • ভূমিকা
  • কি কারণে হাঁটু ব্যথা হয়
  • ফিজিওথেরাপি চিকিৎসা
  • হাঁটো ব্যথার ব্যায়াম
  • হাটু ব্যাথার প্রতিকার
  •  শেষ কথা


ভূমিকা

বয়স ৪০ এর বেশি হলে অনেকের বেশ হাটু ব্যাথা করে । বিশেষ করে সকালে টয়লেটে বসলে অথবা হাঁটু ভেঙ্গে নামাজ পড়লে এদের মধ্যে বেশিরভাগই মহিলা বিশেষ করে মাসিক বন্ধ হওয়ার পরপরই এদের ব্যাথা শুরু হয় । এ সময়ে এদের হাড় ক্ষয়জনিত সমস্যাও দেখা দিতে পারে । এসবের মূল হচ্ছে অস্টিওয়ার্থ্রাইটিস । এটি একধরনের বাত । আসলে আর্থাইটিস হচ্ছে চলমান একটি রোগ যা মাঝে মাঝে এটি দেখা দেয় । রোগী যখন প্রথম প্রথম ব্যাথা অনুভব করেন তখন হাঁটার সময় পায়ের মধ্যে বরের

 ভারসাম্য এদিক ওদিক করে ফেলি । এতে করে হাঁটুর জয়েন্টের মধ্যে একটা পজিশনাল ফল দেখা দেয় । ফলের রোগী  হাঁটু বাজ করে বসতে পারে না সিরি বা উঁচু নিচু  উঠতে বসতে কষ্ট হয় । অনেক সময় হাঁটুতে কটকট শব্দ টানটান অনুভব হয় । কিন্তু এর জন্য দরকার সঠিক ম্যানুয়েল ও মেনুপুলেশন ফিজিওথেরাপি চিকিৎসা যা রোগীকে হাটু ভেঙ্গে বসতে সাহায্য করবে ।

কী কারণে হাটু ব্যথা হয়

আরো পড়ুন ঃ শ্বাসকষ্ট হলে করণীয় কি - শ্বাসকষ্ট কেন হয়

প্রিয় পাঠক আমরা এখন আলোচনা করব যে কি কারণে হাটু ব্যাথা হতে পারে । আপনি যদি না জেনে থাকেন যে কি কারণে হাঁটু ব্যাথা হয়ে থাকে তাহলে নিচের অংশটুকু মনোযোগ সহকারে পরুন ।আর্থাইটিসজনিত সমস্যায় আঘাত জনিত সমস্যায় , স্পোর্টস ইনজুরি , পেটেলা ইনজুরি ইত্যাদি । অনেক সময় কোমরের নার্ভ বা স্নায়ুর কারণে হাঁটু ব্যথা হয় টিউমার জনিত কারণে ক্যান্সার জনিত কারণেও হাটু ব্যাথা হয় ।

ফিজিওথেরাপি চিকিৎসা

উপরে আমরা আলোচনা করেছি কি কারণে হাঁটু ব্যথা হয় আপনি যদি উপরের অংশটুকু পড়ে থাকেন তাহলে নিশ্চয়ই জানতে পেরেছেন । নিচে আমরা আলোচনা করব হাঁটু ব্যাথা হলে ফিজিওথেরাপি চিকিৎসা সম্পর্কে । মেনুয়াল থেরাপি যা রোগীকে 70 থেকে 80 ভাগ ভালো করে । জয়েন্ট জোড়া সঠিক অবস্থানে আনা একে বলা হয় মোবালাইজেশন উইথ মুভমেন্ট চিকিৎসা । ম্যানুপুলেশন থেরাপি ডিপ

  ফিকশন মায়োফেসিয়াল রিলিজ টেকনিক এন  যা হাঁটুর উপর ও নিচের মাংসপেশি ও লিগামেন্ট কে নরম করে ফলে হাঁটুর ব্যাথা কমে জয়েন্ট পাতলা অনুভব হয় । আইসোমেট্রিক এক্সারসাইজ ও স্ট্রেচিং এক্সারসাইজ এন্ড যা হাঁটুর শক্তি ও রেঞ্জ অফ মুভমেন্ট বৃদ্ধি করে । ফলে হাঁটু ভেঙ্গে টয়লেটে বসতে নিচে বসে নামাজ পড়তে পারে । প্রিয় পাঠক উপরে আমরা আলোচনা করেছি ফিজিওথেরাপি চিকিৎসার মাধ্যমে কিভাবে হাঁটু ব্যথা থেকে মুক্তি পেতে পারেন ।

 হাটু ব্যাথার ব্যায়াম

প্রিয় পতাক আপনি যদি হাটু ব্যাথার ব্যায়াম সম্পর্কে জানতে চান তাহলে নিজের অংশটুকু মনোযোগ সহকারে পড়ুন ।হাটু ব্যথার জন্য বিশেষ কিছু ব্যায়াম করলে উপকার পাওয়া যায় । এই ব্যায়ামগুলো সারাদিনে অন্তত দুই থেকে তিনবার করতে হবে । প্রতিবার ভ্যানটি করতে হবে পাঁচ থেকে দশ বার । তবে হাঁটু ব্যাথা ভালো ব্যায়াম সাঁতার কাটা । এতে জয়েন্টের উপর চাপ কম পড়ে কিন্তু মাংসপেশি শক্ত

 হয় । দুই হাটু সোজা করে পা দুটি টানটান অবস্থায় রাখুন । এভাবে দশ সেকেন্ড থাকুন । তারপর পা দুটি স্বাভাবিক অবস্থায় রেখে বিশ্রাম নিন । ৫ থেকে ১০ বার ব্যায়ামটি করুন । শুয়ে বা বসে কিংবা অফিসের ফাঁকে কাজের ফাঁকে এই ব্যায়ামগুলো করতে পারেন । হাঁটুর নিচে তোয়ালে ভাজ করে রেখে পায়ের পাতা টানটান করে শুয়ে থাকুন ১০ সেকেন্ডের জন্য এরপরে একই অবস্থান থেকে পায়ের পাতা

 স্বাভাবিক রেখে বিশ্রাম নিন এই পদ্ধতিতে পাঁচ থেকে দশ বার ব্যায়াম করুন । চেয়ারের পেছনের উঁচু দুই অংশে দুই হাত রেখে দাঁড়ানো । একবার ডান হাঁটু ও পরের বার বাম হাটু ভাঁজ করুন । এভাবে পাশ থেকে দশবার ব্যায়াম করুন । উপরে আমরা আলোচনা করেছি হাটু ব্যাথার ব্যায়াম সম্পর্কে । নিচে আমরা আলোচনা করব হাঁটু ব্যথার প্রতিকার সম্পর্কে ।

 হাটু ব্যথার প্রতিকার

প্রিয় পাঠক আপনি যদি হাঁটো ব্যথায় ভুগে থাকেন এবং এর কোন প্রতিকার পাচ্ছেন না তাহলে নিচের অংশটুকু আপনার জন্য । কারণ নিচে আমরা হাঁটু ব্যথার কিভাবে প্রতিকার করবেন তা আলোচনা করব । তাই মনোযোগ সহকারে নিজের অংশটুকু পড়ুন ।

আরো পড়ুন ঃ পিঠে ব্যাথার কারন ও প্রতিরোধ সম্পর্কে জেনে নিন

  • হাঁটুর তাপমাত্রা যদি স্বাভাবিকের চেয়ে বেশি হয় তাহলে বরফ বা ঠান্ডা সেঁক দেবেন আর হাঁটুর তাপমাত্রা যদি স্বাভাবিক থাকে তাহলে গরম দিবেন ।
  • হাটুর ফোলা থাকলে হাটাহাটি কম করে পায়ের নিচে বালিশ দিয়ে উঁচু করে রাখুন প্রয়োজনে নীক্যাপ ব্যবহার করুন । হঠাৎ ব্যাথা হলে কোন বিশ্রামে থাকুন এবং চিকিৎসকের পরামর্শ নিন ।
  • নিয়মিত হাঁটুন ও শরীরের ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখুন ।
  • ভিটামিন মিনারেল ও আশ যুক্ত খাবার খান ।
  • খেলাধুলার আগে ওয়ার্ম আপ করে নিতে হবে । খেলোয়াড়দের হাটুর আশেপাশে মাংসপেশীকে শক্তিশালী করে তুলতে হবে ।
  • নিয়মিত হালকা বেয়ামু সঠিক চিকিৎসার মাধ্যমে হাটু ব্যাথা নিরাময় সম্ভব ।

শেষ  কথা

প্রিয় পাঠক আপনি যদি শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত আমাদের এই আর্টিকেলটি পড়ে থাকেন তাহলে নিশ্চয়ই জানতে পেরেছেন হাঁটো ব্যথার কারণ হাঁটুর ব্যথার প্রতিকার ও হাঁটু ব্যথার ব্যায়াম সম্পর্কে আরো জানতে পেরেছেন হাঁটু ব্যথা কেন হয় । তথ্যবহুল এই আর্টিকেলটি যদি আপনার কাছে ভালো লেগে থাকে তাহলে নিয়মিত ভিজিট করবেন ।

Next Post Previous Post
No Comment
Add Comment
comment url