কলা খাওয়ার উপকারিতা-কলা খেলে কি কি রোগ ভালো হয়

 কলায় থাকে তিনটি প্রাকৃতিক চিনি সুককোজ,ফ্রুক্টোজ এবং গ্লুকোজ আরো থাকে প্রচুর ফাইবার যা দেয় শরীরকে যোগান দেয় তাৎক্ষণিক শক্তি । প্রিয় পাঠক আপনি যদি কলা খাওয়ার উপকারিতা ও কলা খেলে কি কি রোগ ভালো হয় তা জানতে চান তাহলে পুরো আর্টিকেলটি মনোযোগ সহকারে পড়ুন ।


৯০ মিনিটের কষ্টসাধ্য ব্যায়ামের জন্য শক্তি যোগাতে দুটো কলায় যথেষ্ট । এজন্যই পৃথিবীর বড় বড় এলিটদের কাছে কলায় হল এক নাম্বার ফল । কলা শুধু শক্তি যোগায় না কলা খাওয়ার ফলে আমরা বিভিন্ন উপকার পেয়ে থাকি এবং বিভিন্ন রোগ ভালো হয় তাহলে চলুন দেরি না করে শুরু করা যাক বিস্তারিত বিষয়গুলি ।

পেজ সুচি ঃ কলা খাওয়ার উপকারিতা-কলা খেলে কি কি রোগ ভালো হয়
  • কলা খেলে কি কি রোগ ভালো হয়
  • কলা খাওয়ার উপকারিতা
  • শেষ কথা

  • কলা খেলে কি কি রোগ ভালো হয়ঃ
ডিপ্রেশনঃ কলায় থাকে টিটু ফ্যান নামক প্রোটিন যা শরীরে গিয়ে সেরোটো নিন রূপান্তরিত হয় । সেরোটেনিন  আপনার মনকে রিলাক্স করে আপনার মুড ভালো করে তুলে আপনাকে সুখী বোধ করতে সাহায্য করে । ভিটামিন বি সিক্স রক্তে গ্লুকোজের পরিমাণ নিয়ন্ত্রণ করে যা আপনার মনকে মানসিকতা চাঙ্গা করে তুলবে ।

অ্যানিমিয়াঃ কলায় থাকে প্রচুর আয়রন । রক্তে হিমোগ্লোবিন উৎপাদনে সাহায্য করে । যা এনে মিয়া রোগের জন্য অত্যন্ত সাহায্যকারী । তাই স্বাস্থ্য ঝুঁকি ভালো রাখতে নিয়মিত কলা খান ,

রক্তচাপঃ কলায় প্রচুর পটাশিয়াম থাকে এবং এতে লবণ কম থাকে । যা রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণের জন্য একটি ভাল খুবই কম্বিনেশন । বলা হয় রোগ প্রতিরোধে জন্য কল ও উপকারী । মস্তিষ্ক পটাশিয়ামের উপস্থিতি মস্তিষ্ককে দ্রুত শিখতে সাহায্য করে স্মৃতিশক্তি ভালো করে তুলে ।

পায়খানাঃ কলায় প্রচুর ফাইবার থাকে । পাকা কলা খেলে পায়খানা নরম হয় । আবার কাঁচা কলা খেলে ডায়রিয়ার সময় উপকার পাওয়া যায় । প্রিয় পাঠক আমরা কলার বেশ কিছু উপকার নিয়ে আলোচনা করেছি নিচে আরও কিছু উপকার আলোচনা করা হবে ।

বুক জ্বালা; কলায় প্রাকৃতিক এন্টারসিড থাকে । বুক জ্বললে একটা কলা খান । কলা যে আমাদের শরীরের জন্য কত প্রকারী তা আমরা না খেলে হত বুঝতে পারবো না ।

মাথা ঘুরানোঃ সকাল ও দুপুরের মাঝে সকাল দশটায় একটা কলা খেতে পারেন । আপনার রক্তে সুগার লেভেল ঠিক রাখবে এবং মাথা ঘুরানোর থেমে যাবে ।

মশার কামরঃ  মশার কামড়ে চামড়া ফুলে গেছে বাজারে কোন ক্রিম কেনার আগে পাকা কলার খোসা ঢলে দেখুন । খুব উপকার পাবেন জ্বালাপোড়া কমে যাবে ।

উত্তেজনও স্নায়ুর চাপঃ ভিটামিন বি আপনার স্নায়ুকে শান্ত করে তুলতে সাহায্য করে । পরীক্ষার আগে একটা কলা খান । দেখবেন আপনার পরীক্ষা যথেষ্ট ভালো হবে ।

অতিরিক্ত ওজনঃ অনেকে মন খারাপ থাকলে কাজের অতিরিক্ত চাপ থাকলে নিজের অজান্তেই জ্যাঙ্ক ফুড খেতে থাকেন । এরকম চাপে থাকলে আমাদের ব্লাড সুগার লেভেল ঠিক রাখা প্রয়োজন যা প্রতি দুই ঘন্টা একটি কলা খেলে ঠিক রাখা সম্ভব ।

আলসারঃ কলা জন্য উপকারী । পাকস্থলীর অম্লতা কমাতে সাহায্য করে কলা । আমরা অনেকে আছি যারা আলসারে বুকে থাকে তারা নিয়মিত কলা খেলে অনেক উপকার পাবেন ।

তাপমাত্রাঃ শরীরের তাপমাত্রা ঠিক রাখতে 1 থেকে দুইটি কলা খেতে পারেন । এতে আমাদের শরীরের তাপমাত্রা ঠিকই রেখে কাজে মনোযোগী করে তুলতে সাহায্য করবে ।

ধূমপানঃ ভিটামিন b6 b12 পটাশিয়াম ম্যাগনেসিয়াম শরীর থেকে নিকোটিনের প্রভাব দূর করতে সাহায্য করে । সুতরাং ধূমপান ছেড়ে দেওয়ার জন্য কলার ঝুড়ি নেই । আপনি যদি ধূমপান ছাড়তে চান তাহলে নিয়মিত কলা খেতে পারেন । এতে আপনার স্বাস্থ্যের উপকার হবে বরং কোন ক্ষতি হবে না ।

স্ট্রোকঃ গবেষণা অনুযায়ী প্রতিদিনকার খাদ্যাভাসে কলা রাখলে 40% স্ট্রোকের ঝুঁকি কমে যায় । পটাশিয়াম আপনার হার্টবিট ঠিক রাখে অক্সিজেন মস্তিষ্কে নিয়মিত পৌঁছে দেয় , শরীরের পানির ভারসাম্য বজায় রাখে কলা । আপনি নিশ্চয়ই বুঝতে পেরেছেন যে কলা আমাদের জন্য কতটুকু উপকারী একটি ফল যা দামে অনেক সস্তা ।

আঁচিলঃ প্রাকৃতিক ভাবে আঁচিল থেকে মুক্তি পাওয়ার একটা ভিশন উপায় একটি পাকা কলা নিন । আপনার আঁচিলের উপর ওরুপ স্থাপন করুন । এবার তার উপরে সার্জিকাল টেপ পেঁচিয়ে  রাখুন । আপেলের সাথে কলার তুলনা করলে বলতে হয় এতে আপেলের চাইতে দ্বিগুণ কার্বোহাইডেড আছে ।

  • কলা খাওয়ার উপকারিতাঃ
প্রিয় পাঠক আমরা আলোচনা করেছি কলা খেলে কি কি রোগ ভালো হয় । আপনি যদি উপরের আর্টিকেলটি পড়ে থাকেন তাহলে নিশ্চয়ই বুঝতে পেরেছেন যে কলা খেলে কি কি রোগ ভালো হয় । তাই এখন আমরা আলোচনা করব যে কলা খাওয়ার উপকারিতা সম্পর্কে আপনি যদি আমাদের সাথে থাকেন তাহলে জানতে পারবেন কলা খাওয়ার উপকারিতা । আপেলের সাথে গলার তুলনা করলে বলতে হয়

 এতে আপেলের চাইতে দ্বিগুণ কার্বোহাইড্রেট আছে তিনগুণ ফসফরাস , ৫গুণ ভিটামিন এ আয়রন আছে দ্বিগুণ পরিমাণ অন্যান্য ভিটামিন ও খনিজ আছে । আরো আছে পটাশিয়াম যায় একটি অন্তত কার্যকারী । প্রতিদিন খাদ্য বাসে কলা রাখুন । আপনার শিশু কি এই অভ্যাস গড়ে তুলতে সাহায্য করুন । এতে আপনার শিশু হয়ে উঠবে শক্তিশালী সুন্দর স্মার্ট জ্ঞানী । এবং অনেক রোগ থেকে বাঁচতে পারবে ।
  • শেষ কথাঃ
প্রিয় পাঠক এতক্ষণ আমরা আলোচনা করলাম কলা খাওয়ার উপকারিতা ও কলা খেলে কি কি রোগ ভালো হয় । আপনি যদি শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত পুর আর্টিকেলটি পড়ে থাকেন তাহলে নিশ্চয়ই বুঝতে পেরেছেন বিষয়গুলো । এরকম তথ্যবহুল আরো আর্টিকেল পড়তে নিয়মিত আমাদের ওয়েবসাইটটি ভিজিট করবেন ধন্যবাদ ।
Next Post Previous Post
No Comment
Add Comment
comment url