ক্যান্সার প্রতিরোধে যা যা করতে হবে

 মানুষকে যে রোগগুলো ভোগাই তার মধ্যে ক্যান্সার সবচেয়ে ভয়াবহ । কিন্তু এটি ভয়াবহ হলেও কিছু নিয়ম কারণ মেনে চললে ক্যান্সার প্রতিরোধ করা সম্ভব । আপনি যদি শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত পুরো আর্টিকেলটি পড়েন তাহলে ক্যান্সার প্রতিরোধে যা যা করতে হবে তা জানতে পারবেন ।


প্রাথমিক পর্যায়ে সনাক্ত করতে পারলে বেশিরভাগ ক্যান্সারের চিকিৎসার সম্ভব । জনপ্রিয় কন্ঠশিল্পী সাবিনা ইয়াসমিন বলিউড অভিনেত্রী কৈরালা বা ভারতের ক্রিকেটার যুবরাজ সিং কিন্তু ক্যান্সার জয় করে দাপটে সঙ্গেই ফিরেছেন । তাই আপনি যদি নিজের বিষয়গুলো ভালোভাবে পড়েন এবং এগুলো পালন করতে পারেন তাহলে আপনিও ক্যান্সার থেকে মুক্তি পেতে পারেন ।

পেইজ সূচিঃ ক্যান্সার প্রতিরোধে যা যা করতে হবে

  • অ্যালকোহল ছেড়ে দিন
  • ধূমপান ত্যাগ করুন
  • খাদ্য তালিকা বদলে ফেলুন
  • পারিবারিক ইতিহাস জানুন
  • সূর্যের আলো থেকে নিরাপদ থাকুন
  • রাসায়নিক পদার্থ
  • ওজন নিয়ন্ত্রণ করুন
  • শেষ কথা

  • অ্যালকোহল ছেড়ে দিনঃ

মদ বিয়ার ইত্যাদি খাওয়ার অভ্যাস থাকলে তা ছেড়ে দিন । এটি দেহের জন্য মারাত্মক ক্ষতি কর । অ্যালকোহল পানির সঙ্গে অনেক ধরনের ক্যান্সার জড়িত । যেমন স্তন ক্যান্সার , লিভার ক্যান্সার্ ,গলাই ক্যান্সার ইত্যাদি । অ্যালকোহল আমাদের ডিএনএকে ক্ষতিকর করে । আপনি নিশ্চয়ই বুঝতে পেরেছেন যে অ্যালকোহল খাওয়া একদমই ঠিক না এবং আপনি যদি উক্ত বিষয়টি পড়ে থাকেন তাহলে নিশ্চয়ই বুঝতে পেরেছেন আপনাকে কি করতে হবে ।

  • ধূমপান ত্যাগ করুনঃ

প্রথমে সিগারেট ট্যাগ করার কথা না বললেই নয় । এটি যে মারাত্মক ক্ষতি বয়ে আনে তা বলার মত না । দেহের যে কোষগুলোতে ক্যান্সার বাসা বাঁধতে পারে ধূমপান সে কোষ গুলোতে ক্যান্সার ছড়িয়ে দিতে সাহায্য করে । আপনি যেই হোন না কেন ধূমপান ত্যাগ না করলে ক্যান্সার থেকে দূরে থাকা সম্ভব নয় । তাই আপনি যদি ধূমপান পান করে থাকেন তাহলে চেষ্টা করুন আস্তে আস্তে তা ছেড়ে দিতে ।

  • খাদ্য তালিকা বদলে ফেলুনঃ

খাদ্য তালিকা বদলে ফেলে আমরা অনেক সুস্থ জীবন কাটাতে পারি । সবজি ফল এবং প্রোটিন সমৃদ্ধ খাবারের তালিকা তৈরি করুন । এগুলো ক্যান্সারের সম্ভাবনা উড়িয়ে দিবে । তা ছাড়া পুষ্টিকর খাবার দেহের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়িয়ে দেয় । প্রক্রিয়াজাত খাবার সম্পৃক্ত ফ্যাট এবং লাল মাংসের কারণে সবচেয়ে বেশি ক্যান্সার হয় । তাই আজ থেকে আমরা তাজা বেশি করে ফল-মলুক শাকসবজি খাব ।

  • পারাবারিক ইতিহাস জানুনঃ
আপনার পরিবারে ক্যান্সার ঘঠিত কোন ইতিহাস হয়েছে কিনা তা খুঁজে বের করে জানার চেষ্টা করুন ।যেমন-পরিবারে কারো স্তন ক্যান্সার থাকলে আপনার ও এই সমস্যা হওয়ার সম্ভবনা আছে ।
  • সূর্যের আলো থেকে নিরাপদ থাকুনঃ
সকালে সূর্য উকি দিলে কার না মন চাই সেই আলোতে বের হয়ে যেতে ।এটা ভালো কিন্তু অতিরিক্ত সূর্যের আলোতে ম্যালিগনান্ট মেলানোমার মতো ত্বকের ক্যান্সারের সম্ভাবনা উরিয়ে দেওয়া যায় না ।তাই উক্ত সময় সূর্যের আলো থেকে দূরে থাকার চেষ্ঠা করুন ।

  • রাসানিক পদার্থঃ
নানা ধরনের খাবার দূষিত বায়ু এবং দূষিত পানি থেকে আমরা বিভিন্ন ক্ষতিকর রাসায়নিক পদার্থ গ্রহন করে থাকি ।এসব পদার্থ বিভিন্ন ধরনের ক্যান্সারের কারণ হতে পারে ।যেমন-ভবন তৈরি সময় অ্যাসবেসটস নামে এক ধরনের রাসা্নিক পদার্থ ব্যবহার করা হয় তা ফুসফুসে ক্যান্সারের কারন বলে প্রমান পাওয়া গেছে  ।এছারা রাসায়নিক পদার্থ নিয়ে কাজ করার সময় সাবধানতা অবলম্বনের জন্য হাতে গ্লাপস মুখে কাপর পড়ে কাজ করা উচিত ।
  • ওজন নিয়ন্তন করুন ঃ
স্বাস্থ্যকর ওজন ভালো তবে অতিরিক্ত ওজন মোটেও ভালো নয় । নিজের ওজন নিয়ন্ত্রণ ক্যান্সার থেকে দূরে থাকার বড় একটি উপায় । এছাড়া ওজনের সঙ্গে দেহের নানা সমস্যা ও জড়িত । দেখা গেছে বডি ম্যাচ ইনডেক্স বিএমআই অনুযায়ী স্বাভাবিক ওজন অপেক্ষা ৩০ শতাংশ বেশি থাকলে স্তন ক্যান্সার হওয়ার সম্ভাবনা ৩০% বেড়ে যায় ।

  • শেষ কথাঃ
প্রিয় পাঠক গণ এতক্ষণ আমরা আলোচনা করেছি যে ক্যান্সার প্রতিরোধে যা যা করবেন । তা বলে আর্টিকেলটি যদি আপনার কাছে ভালো লেগে থাকে তাহলে আমাদের ওয়েবসাইট  নিয়মিত ভিজিট করবেন ।

Next Post Previous Post
No Comment
Add Comment
comment url