টনসিল ইনফেকশনের লক্ষণ - টনসিল ইনফেকশনের চিকিৎসা

আপনারা কি টনসিল ইনফেকশনের লক্ষণ ও টনসিল ইনফেকশনের চিকিৎসা বা টনসিল ইনফেকশনের ঘরোয়া চিকিৎসা সম্পর্কে জানতে চান? তাহলে আমাদের আজকের এই পোস্টটি আপনাদের জন্য। আজকে আমরা আলোচনা করব টনসিল ইনফেকশনের লক্ষণ, টনসিল ইনফেকশনের চিকিৎসা বা টনসিল ইনফেকশনের ছবি এবং টনসিল ইনফেকশন হলে করণীয় সম্পর্কে।
তাহলে চলুন দেরি না করে জেনে নেই, টনসিল ইনফেকশনের লক্ষণ, টনসিল ইনফেকশন কি এবং টনসিল ইনফেকশনের চিকিৎসা সম্পর্কে।

সূচিপত্রঃ টনসিল ইনফেকশনের লক্ষণ - টনসিল ইনফেকশনের চিকিৎসা

টনসিল ইনফেকশনের লক্ষণ

টনসিল শীতকালে একটা জটিল সমস্যা দেখা দেয়। অনেকেই এ ধরনের সমস্যায় ভোগে থাকেন। সাধারণত তিন থেকে ১৪ বছরের শিশুদের মধ্যে টনসিলাইটিস বেশি দেখতে পাওয়া যায়। তবে একেবারেই যে বড়দের ক্ষেত্রে হয় না সেটা কিন্তু নয়। টনসিল হচ্ছে এক ধরনের লিম্ফয়েড টিস্যু বা লসিকাগ্রন্থি। এতে কোন ধরনের প্রদাহ বা ইনফেকশন হলে এটাকে আমরা টনসিলাইটিস বলে থাকি। মানুষের গলার মধ্যে দুইপাশে থাকে একজোড়া প্যালাটিন টনসিল।

আরো পড়ুনঃ মাথার রগে সমস্যা - মাথার রগে ব্যাথা

আমরা টনসিলের প্রদাহ বলতে এর ইনফেকশন টাকেই বুঝি। টনসিল ইনফেকশনের জন্য ব্যাকটেরিয়া এবং ভাইরাস উভয়ই দায়ী হয়ে থাকে। টনসিল ইনফেকশনের লক্ষণ গুলো সম্পর্কে কিছু আলোচনা করা হলো।

  • টনসিল ইনফেকশনের কারণে গলা ব্যথা এবং খাবার গিলতে সমস্যা হয়ে থাকে এবং শরীরে ক্লান্তি ক্লান্তি ভাব মনে হয়।
  • টনসিলের কারণে গলা ব্যথার সাথে ১০২ থেকে ১০৪ ডিগ্রি ফারেনহাইট জ্বর পর্যন্ত হতে পারে। সেই সাথে খাবারে অরুচি এবং বমি বমি ভাব থাকতে পারে।
  • গলার সাথে সম্পর্ক রয়েছে কানের। সে ক্ষেত্রে টনসিলের ইনফেকশনের কারণে কান ব্যথা করবে এবং গা হাত ব্যথা করতে পারে।
  • অনেক সময় শিশুদের ক্ষেত্রে মুখ দিয়ে লালা পড়তে দেখা যেতে পারে।
  • মারাত্মক ইনফেকশনের কারণে অনেক সময় মুখ খুলতে ও অসুবিধা হয়ে থাকে।

টনসিল ইনফেকশনের চিকিৎসা| টনসিল ইনফেকশনের ঘরোয়া চিকিৎসা

সব সময় টনসিলাইটিসের চিকিৎসার প্রয়োজন হয় না, বিশেষ করে সেটা যদি কোল্ড ভাইরাসের কারণে হয়। চিকিৎসা করা হয় এন্টিবায়োটিক দ্বারা এবং খুব যদি সিরিয়াস সমস্যা হয়ে থাকে তাহলে টন সিলেক্টোমি করা হয়ে থাকে। যদি কোন ব্যক্তির টনসিলের কারণে ডিহাইড্রেশন হয়ে থাকে, তখন তাকে দেওয়া হয় ইন্ট্রাভেনাস ফ্লুইড। এছাড়াও টনসিল ইনফেকশনের চিকিৎসা করে গলা ব্যথা কমানোর জন্য ওষুধ দেওয়া হয়ে থাকে। এছাড়াও টনসিল ইনফেকশনের ঘরোয়া চিকিৎসা আছেই।

টনসিল ইনফেকশনের লক্ষণ দেখা দিলে টনসিল ইনফেকশনের চিকিৎসা ও ঘরোয়া চিকিৎসা করতে পারেন। ঘরোয়া চিকিৎসা গুলো নিচে তুলে ধরা হলো-

আরো পড়ুনঃ সরিষা তেলের উপকারিতা - ত্বকে সরিষার তেলের উপকারিতা

  • প্রচুর পরিমাণে পানি পান করতে হবে।
  • প্রয়োজনীয় বিশ্রাম নেয়া লাগবে।
  • গরম পানিতে নুন দিয়ে একটু পর পর গার্গেল করা লাগবে।
  • থ্রোট লজেন্স খেতে পারেন।
  • হিউমিডিফায়ার ব্যবহার করে ঘরের বাতাসকে আর্দ্র রাখতে পারেন।
  • ধূমপান থেকে দূরে থাকতে হবে।
  • আইবুপ্রোফেন কিংবা এসিটা মিনোফেন জাতীয় ঔষধ গলা ব্যথা কমানোর জন্য ব্যবহার করতে পারেন।

টনসিল ইনফেকশন কি| টনসিল ইনফেকশনের ছবি

শীতকাল আসতে না আসতেই ছোট বড় সবার টনসিল ইনফেকশন শুরু হতে থাকে। তখন মানুষ টনসিল ইনফেকশন থেকে মুক্তি পাওয়ার জন্য টনসিল ইনফেকশন কি টনসিল ইনফেকশনের লক্ষণ এবং টনসিল ইনফেকশনের চিকিৎসা করার জন্য উদ্রিব হয়ে ওঠে। টনসিল ইনফেকশন হচ্ছে এক ধরনের তীব্র ইনফেকশন বা একিউট টনসিলাইটিস। এ ধরনের ইনফেকশন থেকে মুক্তি পাবার জন্য চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী চলা এবং নিয়ম মত সঠিক সময়ে ওষুধ গ্রহণ করলে টনসিল ইনফেকশন থেকে মুক্তি পাওয়া সম্ভব হবে।

অনেক মানুষ আছে যারা টনসিল ইনফেকশন হলে কেমন হয় সেটা জানার জন্য ইন্টারনেটে খোঁজ করে থাকে। তাদের জন্য কিছু টনসিল ইনফেকশনের ছবি আপলোড করছি। টনসিল ইনফেকশনের ছবি আসলে কেমন হয় এটা দেখলে তা কিছুটা হলেও ধারণা আসবে। তাহলে চলুন দেখে আসি, নিচে কিছু ছবি দেয়া হল-

টনসিল ইনফেকশন হলে করণীয়

আমাদের টনসিল ইনফেকশন হলে করণীয় কি সে সম্পর্কে এখন আলোচনা করব। সাধারণত মাউথওয়াশ, অ্যান্টিবায়োটিক, এন্টি হিস্টামিন, ব্যথার ওষুধ এবং প্রচুর পরিমাণে পানি খাবার পরামর্শ দিয়ে থাকেন টনসিল ইনফেকশন এর চিকিৎসা করার জন্য। তবে যদি কেউ ঠিকভাবে চিকিৎসা না গ্রহণ করে এবং চিকিৎসকের পরামর্শ না মেনে চলে তাহলে বারবার তার দীর্ঘমেয়াদি প্রদাহ হতেই থাকে, এটাকে বলা হয় Chronic Tonsillitis। Chronic Tonsillitis -কে বিভিন্নভাবে চিকিৎসাশাস্ত্রে সংজ্ঞায়িত করা হয়।

আরো পড়ুনঃ ঘুম ঘুম ভাব দূর করার উপায়

তবে যদি বছরে ৪-৫ বার করে পরপর দুই বছর এই দীর্ঘমেয়াদি ইনফেকশন হয়, সেক্ষেত্রে অসুস্থ টনসিল অপারেশন করাটাই শ্রেয় এবং স্থায়ী সমাধান বলে মনে করি। কেননা টনসিল ইনফেকশন নিয়ে হ্যালোফেলা করে রেখে দিলে পরবর্তীতে এটা বড় সমস্যার আকার ধারণ করতে পারে। সে ক্ষেত্রে আমাদের দ্রুত চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী ওষুধ খেতে হবে। যদি ওষুধে সমস্যা সমাধান না হয়, তাহলে টনসিল অস্ত্র পাচার করে নেয়াটাই ভালো এবং নিরাপদ। না হলে সেটা দীর্ঘমেয়াদী হয়ে গেলে অপারেশন করা ছাড়া কোন উপায় থাকবে না।

শেষ কথাঃ টনসিল ইনফেকশনের লক্ষণ - টনসিল ইনফেকশনের চিকিৎসা

টনসিল ইনফেকশনের লক্ষণ ও টনসিল ইনফেকশনের চিকিৎসা সম্পর্কে জানতে হলে আমাদের পুরো পোষ্টটি ভালোভাবে পড়ুন, আশা করি সবকিছু ভালোভাবে বুঝতে পারবেন। টনসিল ইনফেকশনের লক্ষণ ও টনসিল ইনফেকশনের চিকিৎসা সম্পর্কে সবার আগে জানতে হলে আমাদের সাথেই থাকুন।

আজ আর নয়, টনসিল ইনফেকশনের লক্ষণ ও টনসিল ইনফেকশনের চিকিৎসা সম্পর্কে আপনার কোন কিছু জানার থাকলে আমাদের কমেন্ট বক্সে জানাতে পারেন। আশা করি আমরা আপনার উত্তরটি দিয়ে দেবো। তাহলে আমাদের আজকের এই টনসিল ইনফেকশনের লক্ষণ ও টনসিল ইনফেকশনের চিকিৎসা সম্পর্কে পোস্টটি যদি আপনাদের ভালো লেগে থাকে, তাহলে আপনার ফেসবুক ইন্সটাগ্রাম প্রোফাইলে আমাদের পোস্টটি শেয়ার করতে পারেন। ধন্যবাদ। ২৩৭৬৬

Next Post Previous Post
No Comment
Add Comment
comment url