প্রস্টেট গ্রন্থি বৃদ্ধির চিকিৎসা - প্রস্টেট গ্রন্থি বৃদ্ধির লক্ষণ

প্রস্টেট একটি সুপারির মতো মাংসপিণ্ড যা পুরুষদের মুত্রথলির নিচে মূত্রথলিকে ঘিরে থাকে। প্রস্টেট গ্রন্থি বৃদ্ধির চিকিৎসা সম্পর্কে আলোচনা করা হবে। আপনি যদি প্রস্টেট গ্রন্থি বৃদ্ধির চিকিৎসা সম্পর্কে জানতে চান তাহলে আজকের আর্টিকেল থেকে প্রস্টেট গ্রন্থি বৃদ্ধির চিকিৎসা সম্পর্কে জেনে নিন।

তাহলে চলুন দেরি না করে ঝটপট প্রস্টেট গ্রন্থি বৃদ্ধির চিকিৎসা সম্পর্কে জেনে নেওয়া যাক। চিকিৎসাটি জানতে হলে আপনাকে সম্পূর্ণ আর্টিকেল শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত মনোযোগ সহকারে পড়তে হবে।

সূচিপত্রঃ প্রস্টেট গ্রন্থি বৃদ্ধির চিকিৎসা - প্রস্টেট গ্রন্থি বৃদ্ধির লক্ষণ

প্রস্টেট গ্রন্থি বৃদ্ধির লক্ষণ

প্রস্টেট গ্রন্থ সম্পর্কে আমাদের প্রথমে জানতে হবে। কারণ আমরা অনেকেই এই রোগটির নাম নতুন শুনে থাকব। প্রস্টেট পুরুষদের প্রজননতন্ত্রের সঙ্গে সম্পর্কিত একটি ছোট গ্রন্থি যেটি মূত্রথলির নিচে থাকে। এটি বীর্য তৈরি ও পরিবহনে সহযোগিতা করে থাকে। বিভিন্ন সময় এর অসুবিধার কারণে আমাদের প্রস্টেট গ্রন্থি বৃদ্ধির লক্ষণ দেখা যায়। নিচে প্রস্টেট গ্রন্থি বৃদ্ধির লক্ষণ গুলো উল্লেখ করা হলো।

আরো পড়ুনঃ মাথার রগে সমস্যা - মাথার রগে ব্যাথা

১। প্রস্টেট গ্রন্থে বৃদ্ধির লক্ষণ এর মধ্যে অন্যতম হলো ঘনঘন প্রস্রাব হওয়া।

২। ফোঁটা ফোটা প্রস্রাব হওয়া।

৩। প্রস্রাব করার পরও প্রস্রাব এর থলি খালি না হওয়া।

৪। প্রস্রাবের বেগ আটকে রাখা অসম্ভব হয়ে পড়ে।

৫। প্রস্রাবের গতি দুর্বল ও মাছ পথে বন্ধ হওয়া।

৬। অনেক সময় প্রসাবের সঙ্গে রক্ত বের হওয়া।

৭। প্রসবের থলি বেশি ভরে ফোটা ফোটা প্রসাব বের হওয়া।

প্রস্টেট গ্রন্থি বৃদ্ধির চিকিৎসা

প্রস্টেট গ্রন্থি বৃদ্ধির চিকিৎসা করালে এটি ভালো করা সম্ভব। এর জন্য আমাদের বেশ কয়েকটি চিকিৎসা পদ্ধতি রয়েছে। ডাক্তারের পরামর্শ নিয়ে আপনার কোন প্রস্টেট গ্রন্থি বৃদ্ধির চিকিৎসা পদ্ধতিটি সুবিধা হবে সেটি করাতে হবে।

শল্যচিকিৎসা - এই চিকিৎসা ক্ষেত্রে মূত্র পথ দিয়ে একটা যন্ত্র ঢুকিয়ে প্রোস্টেটের সেই পয়েন্টে নিয়ে যাওয়া হয়। যেখানে প্রসাবের গতি বাধাপ্রাপ্ত হয়েছে। তারপর অতিরিক্ত টিস্যু কেটে ফেলা হয় এভাবেই এই রোগের চিকিৎসা করা হয়।

লেজার চিকিৎসা - বর্তমান সময়ে লেদার চিকিৎসা খুবই জনপ্রিয়। প্রোস্টেট গ্রন্থি বৃদ্ধির চিকিৎসার মধ্যে অন্যতম চিকিৎসা হলো লেজার সার্জারি। এক্ষেত্রে প্রস্রাবের রাস্তা দিয়ে যন্ত্র ঢুকিয়ে পরীক্ষা করা হয়।

প্রোস্টেট ঘরোয়া চিকিৎসা

প্রোস্টেট ঘরোয়া চিকিৎসা এর মাধ্যমে ভালো করা সম্ভব। যার জন্য আপনার জীবন ধারার পরিবর্তন আনতে হবে এবং খাদ্য ভাষা পরিবর্তন আনতে হবে। এর মাধ্যমে আপনি প্রোস্টেট ঘরোয়া চিকিৎসা নিয়ে খুব সহজে এখান থেকে মুক্তি পেতে পারবেন। নিচে প্রোস্টেট ঘরোয়া চিকিৎসা উল্লেখ করা হলো।

১। অতিরিক্ত পরিমাণে অ্যালকোহল অথবা ধূমপান করা যাবে না। বিশেষ করে রাতে খাবার পরে কোন রকম অ্যালকোহল বা ধুমপান করা যাবে না।

২। চাপ যুক্ত পরিস্থিতি থেকে দূরে থাকতে হবে। অর্থাৎ মানসিক চাপ থেকে সবসময় নিজেকে দূরে রাখতে হবে। মানসিক চাপের কারণে এই সমস্যাটি দেখা যায়।

৩। নিয়মিত শরীর চর্চা করতে হবে। আমাদের শরীরকে সুস্থ রাখার মূল মন্ত্র হলো নিয়মিত শরীরচর্চা। এছাড়া উক্তর থেকে মুক্তি পেতে হলে নিয়মিত নির্দিষ্ট সময় শরীর চর্চা করতে হবে।

আরো পড়ুনঃ শীতকালীন সবজির নামের তালিকা

৪। পেলভিক মাসেল শক্তিশালী করার জন্য কেগেল ব্যায়াম করতে হবে। এই ব্যায়ামটি প্রোস্টেট দূর করার জন্য খুবই কার্যকরী ভূমিকা পালন করে।

৫। অপরের লক্ষণগুলো দেখা দিলে অবশ্যই যত তাড়াতাড়ি সম্ভব ডাক্তারের পরামর্শ নিতে হবে।

৬। দীর্ঘ সময় ধরে প্রস্রাব আটকে রাখা যাবে না। এভাবে প্রসব আটকে রাখলে এ রোগ হওয়ার সম্ভাবনা আরব বৃদ্ধি পায়।

প্রস্টেট ব্যায়াম

আমরা জানি যে প্রস্টেট ব্যায়াম করার মাধ্যমে এই সমস্যার সমাধান করা যায়। আমরা ইতিমধ্যেই প্রস্টেট গ্রন্থি বৃদ্ধির চিকিৎসা সম্পর্কে জেনেছি। নিচে প্রস্টেট ব্যায়াম সম্পর্কে জেনে নিন।

বদ্ধ কোণাসনঃ এই ব্যায়াম করার জন্য বসার পর দুপায়ের পাতা মুখোমুখি আনার পরে একসাথে করতে হবে। এরপরে হাঁটু দুটো মেঝের সঙ্গে লেগে থাকবে। এই আসনে পেশি প্রসারণ বাড়াতে হলে মুখোমুখি জুড়ে রাখা পায়ের পাতা দুটি ভিতরের দিকে আনতে হবে। আর প্রসারণ কমাতে পায়ের পাতা বাইরের দিকে এগিয়ে দিতে হবে।

জানু শীর্ষাসনঃ এই ব্যায়াম করার জন্য প্রথমে নীচে বসে দুই পা সামনের দিকে বাড়িয়ে দিতে হবে। এই অবস্থায় ডান পা ভাঁজ করে বাঁ পায়ের থাইয়ের দিকে নিয়ে আসতে হবে। এবারে থুতনি বুকের কাছে ঠেকিয়ে দুই হাত নিচে রেখে ধীরে ধীরে যতটা সম্ভব মেঝের দিকে ঝুঁকতে হবে। শরীর উপরে নিয়ে যাওয়ার সময় ধীরে ধীরে নিঃশ্বাস ছাড়তে হবে।

ধনুরাসনঃ এই ব্যায়াম করার জন্য মেঝেতে উপুড় হয়ে শুতে যেতে হবে। এরপর শরীরের সামনের অংশ ধীরে ধীরে মেঝে থেকে উপরে তুলতে হবে। অন্যদিকে দুই পা পিছন দিকে বেঁকিয়ে উপরে তুলে আনতে হবে। এরপর দুই হাত পিছন দিকে বাড়িয়ে দুই পায়ের আঙুল ধরতে হবে। এই অবস্থায় শরীরের সমস্ত ভার পেটের উপর থাকে।

প্রোস্টেট গ্রন্থির কাজ

প্রোস্টেট গ্রন্থির কাজ সম্পর্কে আমরা অনেকেই অবগত নয়। আপনাদের জানা সুবিধার্থে এখন আমরা প্রোস্টেট গ্রন্থির কাজ সম্পর্কে আলোচনা করব। প্রোস্টেট গ্রন্থি পুরুষের দেহের একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ যা পুরুষের প্রজননতন্ত্রের অন্তর্ভুক্ত। কেবল পুরুষেরই প্রোস্টেট গ্রন্থি পাওয়া যায়। এর আকার অনেকটাই কাজু বাদামের মত।

মূত্রথলির তলদেশে থেকে যেখানে মন্ত্রণালীর শুরু সেখানকার চারপাশ জুড়ে এই গ্রন্থি অবস্থান করে। এর মধ্য দিয়ে মূত্র এবং বীর্য প্রবাহিত হয়। প্রোস্টেট গ্রন্থির মূল কাজ হচ্ছে বীর্যের অন্যতম উপাদান একটি তরল আঠালো পদার্থ সৃষ্টি করা। শুক্রাণু এবং এই তরলের মিশ্রণে বীর্য তৈরি হয়।

প্রস্টেট গ্রন্থি বৃদ্ধির হোমিও ঔষধ - প্রস্টেট ঔষধ

যদিও এই রোগ তেমন বেশি গুরুতর নয় কিন্তু এর সঠিক সময় চিকিৎসা না করা হলে অনেক সময় এটি মারাত্মক আকার ধারণ করে। তাই প্রস্টেট গ্রন্থি বৃদ্ধির হোমিও ঔষধ সম্পর্কে জেনে থাকা আমাদের স্বাস্থ্যের জন্য জরুরী। তাই আপনাদের সুবিধার্থে প্রস্টেট ঔষধ সম্পর্কে আলোচনা করব।

বর্তমান সময়ে হোমিও চিকিৎসা জনপ্রিয় হয়ে উঠছে। যদি আধুনিক চিকিৎসার কাছে হোমিও চিকিৎসা তেমন কোন গুরুত্ব নেই তবুও অনেক মানুষ হোমিও চিকিৎসার উপরে এবং আল্লাহ তালার রহমতের ওপরে বিশ্বাস করে। কারণ প্রাচীনকালে এই হোমিও চিকিৎসা দিয়েই বিভিন্ন রকমের জটিল রোগ চিকিৎসা করা হতো।

আরো পড়ুনঃ শীতকালীন সবজির নামের তালিকা

প্রস্টেট গ্রন্থি বৃদ্ধির হোমিও ঔষধ খাওয়ার জন্য আপনাকে ভালো একটি অভিজ্ঞ হোমিও চিকিৎসক এর কাছে যেতে হবে। যেখানে রোগীর ভালো চিকিৎসা করা হয়। সেখানে গিয়ে আপনার উপসর্গগুলো চিকিৎসককে বলতে হবে এবং আপনার কোন ধরনের সমস্যা হচ্ছে সবকিছু ডাক্তারের সাথে শেয়ার করতে হবে। যেখানে আপনাকে প্রস্টেট ঔষধ দেওয়া হবে।

আমাদের শেষ কথাঃ প্রস্টেট গ্রন্থি বৃদ্ধির চিকিৎসা - প্রস্টেট গ্রন্থি বৃদ্ধির লক্ষণ

প্রিয় পাঠকগণ আজকের এই আর্টিকেলেপ্রস্টেট গ্রন্থি বৃদ্ধির চিকিৎসা, প্রস্টেট গ্রন্থি বৃদ্ধির হোমিও ঔষধ, প্রস্টেট ঔষধ, প্রোস্টেট গ্রন্থির কাজ, প্রস্টেট গ্রন্থি বৃদ্ধির লক্ষণ, প্রস্টেট ব্যায়াম, প্রোস্টেট ঘরোয়া চিকিৎসা সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়েছে। আশা করি আপনারা উক্ত বিষয়গুলো সম্পর্কে জানতে পেরেছেন।

প্রস্টেট গ্রন্থি বৃদ্ধির চিকিৎসা নিতে চান তাহলে অবশ্যই ডাক্তারের পরামর্শ নিন দেরি না করে। আপনি যদি শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত মনোযোগ সহকারে পড়ে থাকেন তাহলে আশা করি উক্ত বিষয়গুলো জানতে পেরেছেন।২০৭৯১

Next Post Previous Post
No Comment
Add Comment
comment url